কিভাবে মোবাইল ব্যাকআপ রাখা যায়? - Itblogbd

Above add

কিভাবে মোবাইল ব্যাকআপ রাখা যায়?

মোবাইল থেকে ভুলে ডিলিট করে ফেলা কোন তথ্য আবার সহজে ফিরিয়ে আনার জন্য আমাদেরকে সেই তথ্যটির ব্যাকআপ রাখতে হয়। 

সেই তথ্যগুলো ব্যাকআপ না রাখলে পরবর্তীতে ভুলে ডিলিট হয়ে গেলে সেগুলো আর ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয় না। তাই আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে মোবাইল ব্যাকআপ রাখা যায়?

মোবাইলের কন্টাক্ট নাম্বার, মেসেজ, কল লকস, অ্যাপস ব্যাকআপ রাখার জন্য দুটি উপায় রয়েছে। একটি হচ্ছে মোবাইলের ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ রাখা এবং অন্যটি হচ্ছে গুগল ড্রাইভে জিমেইলে ব্যাকআপ রাখা। 

আমাদের মোবাইল থেকে কোন একটি তথ্য ভুলে ডিলিট হয়ে গেলে। আমরা সেই তথ্যটি মোবাইলের ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ রাখা তথ্য থেকে ব্যাকআপ করতে পারব। 

আরও পড়ুনঃ কিভাবে প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করা অ্যাপস ব্যাকআপ করবেন?

মোবাইল হারিয়ে যাওয়া বা হঠাৎ মোবাইল নষ্ট হয়ে যাওয়া এরকম ‌কোন কারণে আপনার মোবাইলের তথ্য গুলো হারিয়ে যেতে পারে। 

আপনার তথ্যগুলো যদি ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ করা থাকে তারপরও আপনি সেই তথ্যগুলো ব্যাকআপ করতে পারবেন না কারণ আপনার ফোনটি হারিয়ে গেছে বা পুরোপুরি নষ্ট হয়ে গেছে। 

মোবাইল হারিয়ে যাওয়া বা নষ্ট হয়ে যাওয়ার পরে আপনার তথ্যগুলোকে অন্য মোবাইল থেকে উদ্ধার করতে মোবাইলের তথ্যগুলো গুগল ড্রাইভে ব্যাকআপ করে রাখতে হবে।

কিভাবে মোবাইল ব্যাকআপ রাখা যায়?


মোবাইল ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ রাখতে হলে আপনার ফোন সেটিং এ অবশ্যই backup and restore অপশনটি থাকতে হবে।

যদি আপনার ফোনে backup and restore  অপশনটি থাকে তাহলে আপনি খুব সহজেই আপনার ফোনের ‌কন্টাক্ট নাম্বার, মেসেজ, কল লকস, অ্যাপস ইত্যাদি আপনার ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ করতে পারবেন।

গুগোল ড্রাইভে তথ্যগুলো ব্যাকআপ করে রাখার জন্য আপনাকে একটি জিমেইলের প্রয়োজন হবে। এবং অবশ্যই আপনাকে সেই জিমেইল এর পাসওয়ার্ড মনে রাখতে হবে।

পরবর্তীতে আপনি অন্য কোন ফোন থেকে আপনার ওই জিমেইল এবং জিমেইল এর পাসওয়ার্ড দিয়ে গুগল ড্রাইভে লগইন করলে আপনার ব্যাকআপ রাখা তথ্য গুলো খুব সহজেই পেয়ে যাবেন।

কিভাবে মোবাইল ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ রাখা যায়?

মোবাইল ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ রাখার জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার ফোনের সেটিং(setting) এ যেতে হবে। সেটিং অপশনটিতে যাওয়ার পর আপনাকে নিচের স্ক্রীনশটএর মত additional setting অপশনটি খুজে বের করতে হবে।

Additional setting

Additional setting অপশনটিতে ক্লিক করার পর নতুন একটি পেজ ওপেন হবে। সেই পেজটি থেকে নিচের স্ক্রীনশটএর মত আপনাকে backup and restore অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে।

Backup and restore

এরপর নতুন একটি পেজ ওপেন হবে ওই পেজ থেকে আপনি গুগল ড্রাইভে ব্যাকআপ রাখার সময় যেই একাউন্টে ব্যাকআপ রাখতে চান ওই অ্যাকাউন্ট সিলেক্ট করে দিন।

Add backup gmail

তারপর নিচের স্ক্রীনশটে দেখানো backup and restore অপশনটিতে ক্লিক করুন।



Backup and restore

তারপরে নতুন একটি পেজ ওপেন হবে ওই পেজ থেকে New backup বাটনটিতে ক্লিক করুন। 

New backup


New backup বাটনটিতে ক্লিক করার পর নতুন একটি পেজ ওপেন হবে। সেই পেজ থেকে আপনি আপনার ফোনের যে তথ্যগুলো ব্যাকআপ রাখতে চান। 

অর্থাৎ কন্টাক্ট নাম্বার(contact number), মেসেজ(message), কল লকস(call logs), অ্যাপস(apps) ইত্যাদি থেকে যে তথ্যগুলো ব্যাকআপ রাখতে চান সেগুলো সিলেক্ট করে স্টার্ট(Start) বাটনে ক্লিক করুন।

Backup data

তারপর আপনি যেই ‌‌‌ তথ্যগুলো ব্যাকআপ করার জন্য সিলেক্ট করেছেন সেই তথ্যগুলো আপনার ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজে ব্যাকআপ হওয়া শুরু হবে। 

পরবর্তীতে ভুলে কোন কন্টাক্ট নাম্বার, মেসেজ, অ্যাপস ডিলিট হয়ে গেলে আপনি আপনার ইন্টারনাল স্টোরেজ থেকে ব্যাকআপ করে নিতে পারবেন।

কিভাবে মোবাইল গুগল ড্রাইভে ব্যাকআপ রাখা যায়?‌

মোবাইল হারিয়ে যাওয়া বা নষ্ট হওয়া বা অন্য কোনো কারণে মোবাইলের তথ্যগুলো হারিয়ে গেলে। সেই তথ্যগুলো আবার অন্য ফোন থেকে ব্যাকআপ করার জন্য গুগল ড্রাইভে ব্যাকআপ রাখতে পারেন।

গুগোল ড্রাইভে তথ্যগুলো সুরক্ষিত রাখার জন্য আপনার একটি জিমেইল এর প্রয়োজন হবে। এবং আপনাকে সেই জিমেইল এর পাসওয়ার্ড মনে থাকতে হবে। 

জিমেইল অ্যাকাউন্ট এবং জিমেইল পাসওয়ার্ড মনে থাকলে আপনি অন্য ফোনের গুগোল ড্রাইভে লগইন করে খুব সহজেই আপনার তথ্যগুলো পেতে পারেন।

গুগোল ড্রাইভ অ্যাপসটি না থাকলে প্লে-স্টোরে গিয়ে Google drive লিখে সার্চ করে ডাউনলোড করে নিন।

তারপর প্রথমেই আপনাকে গুগোল ড্রাইভ অ্যাপস টিতে প্রবেশ করতে হবে। গুগোল ড্রাইভ অ্যাপস টিতে প্রবেশ করার পর নিচের স্ক্রীনশটের মতো একটি পেজ দেখতে পাবেন। ওই পেজ থেকে থ্রি ডট মেনুতে ক্লিক করুন।


উপরের স্ক্রিনশটে দেখানো থ্রি ডট মেনুতে ক্লিক করার পর নতুন একটি পেজ ওপেন হবে। সেই পেজ থেকে নিচের স্ক্রিনসট দেখানো backup অপশনটিতে ক্লিক করুন।



উপরে স্ক্রিনশটে দেখানো backup অপশনটিতে ক্লিক করার পর নতুন একটি পেজ ওপেন হবে। নিচের দেখানো স্ক্রীনশটের মত সেই পেজ থেকে backup setting অপশনটিতে ক্লিক করুন।


ব্যাকআপ সেটিং(backup setting) অপশনটিতে ক্লিক করার পর নিচের স্ক্রীনশটের মত একটি পেজ ওপেন হবে। এই পেজ থেকে নিচে স্ক্রিনশটে দেখানো backup to Google drive এই অপশনটি চালু করে দিন।


উপরে স্ক্রিনশটে দেখানো অপশনটি চালু করার পর নতুন একটি পেজ ওপেন হবে। সেই পেজ থেকে আপনি আপনার ডাটা গুলো কোন জিমেইলে ব্যাকআপ রাখতে চান সেই জিমেইল অ্যাকাউন্ট সিলেক্ট করুন।


জিমেইল একাউন্ট সিলেক্ট করা হয়ে গেলে নিচের স্ক্রীনশটে দেখানো Back up Now বাটনটিতে ক্লিক করুন।




Backup Now বাটনটিতে ক্লিক করার পর আপনার মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য যেমন, কন্টাক্ট নাম্বার, মেসেজ, অ্যাপস এবং অ্যাপস ডাটা, ডিভাইস সেটিং, কল হিস্টরি(call history) ব্যাক আপ হওয়া শুরু হবে। 

উপরের পদ্ধতিগুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার ফোনের ব্যাকআপ গুগল ড্রাইভে আপলোড করলেন। পরবর্তীতে এই তথ্যগুলো ব্যবহার করার জন্য আপনাকে গুগল ড্রাইভে প্রবেশ করে তথ্যগুলো ডাউনলোড করতে হবে।

আমাদের শেষ কথা

আশা করি এখন কিভাবে মোবাইল ব্যাকআপ রাখা যায়? এটা শিখতে পেরেছেন। মোবাইল গুগল ড্রাইভে ব্যাকআপ রাখার পর অবশ্যই আপনার জিমেইল এবং জিমেইল পাসওয়ার্ড মনে রাখবেন। আজকের এই আলোচনায় আমি বুঝাতে চেষ্টা করেছি কিভাবে খুব সহজেই মোবাইল ব্যাকআপ রাখা যায়। আপনার মোবাইলের তথ্যগুলো হারিয়ে যাওয়া বা ডিলিট হয়ে যাওয়ার পূর্বেই ব্যাকআপ করে রাখুন। ধন্যবাদ।

Sharif ahmed ব্লগিং করা আমার স্বপ্ন। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে বাংলায় টেকনোলজি নিয়ে ব্লগিং শুরু করেছি।

0 Response to "কিভাবে মোবাইল ব্যাকআপ রাখা যায়?"

Post a Comment

দয়াকরে কমেন্ট স্প্যামিং থেকে বিরত থাকুন !

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel